why fight for food menu - KAKOLIB.COM

why fight for food menu

                  কেন food menu  নিয়ে খেয়ো খেয়ি 

Laos Luang Prabang snakes scorpion drink
ভিয়েতনাম স্নেক  মদ 

কিছু দিন আগেই খবরে  কাগজে বেরুচ্ছিলোনা ,খাবার নিয়ে সব খেয়ো খেয়ি!কে কি খাবে আর কে কি খাবে না ,সেটা তো নিজস্ব ইচ্ছা রে ভাই ,অন্য কেন নাক গলাবে কে জানে ? এতো সেই ছেলে বেলার গল্পটার মতো। চতুর  শৃগাল নিমন্ত্রণ  করে ,সারস পাখীকে খাবার জন্যে,ফুড মেনু  ছিল  ফিশ ,কিন্তু খাবার পরিবেশন করে থালাতে ,সারস খেতে পারেনা  ঠিক মতো।  ঠিক উল্টো ভাবে সারাস পাখি শিয়াল কে  নিমন্ত্রণ করে খাওয়ার জন্য,আর পরিবেশন করে গলা সরু কুঁজোর মধ্যে করে। শিয়াল খেতে পারেনা তাই ঠিক মতো ,খাবার নিয়ে খেয়ো  খেয়ি আর কি!

আজ আপনা দের শুনাবো কিছু অদ্ভুত food name , বিভিন্ন দেশের। এই সব খাবার নিয়ে কিন্তু সেই দেশে খেয়ো খেয়ি নেই। হোটেল ইন্ডাস্ট্রি তে কাজ করার খাতিরে এই গুলোর নাম জানতে পারি আমি,আর এর মূল কারণ হলো আমি একটু লোভী মানুষ। সুযোগ পেলে ও গুলো টেস্ট করতে চাই। আপনারা চান কিনা টেস্ট করতে এগুলো ,সেটা এই লেখার শেষে জেনে নেবো। 



শুভারম্ভ 

আগেই নিজের দেশ কে দিয়ে শুরু করি। আমরা হাত দিয়ে খাবার খাই,শহুরে বাবুরা অবশ্য কাটলেরি ব্যবহার করছেন।হাথে করে মেখে খাওয়ার মজা আলাদা।  চীনের লোকেরা চপ স্টিক ব্যবহার করে খাবার খাওয়ার জন্য। চপ স্টিক এর সরু  দিকটা থাকবে ,খাবার তোলার জন্য ,যদি সরু দিকটা ওপরে রাখেন তবে সেটা মৃত্যুর আগমনের চিহ্ন হতে পারে !এটা চীনা  এর  কুসংস্কার,বই কিছু নয়!

চীনের কথা বললুম এবার জাপানের কথা বলি। জাপান এ খেতে বসার আগে গরম তোয়ালে দিয়ে অতিথির হাত পুচিয়ে দেবে,একে বলে 'ওশিবোরি '.আর জাপান এ সূপ খেতে হয় ,জোরে শব্দ করে ,যত জোর শব্দ হবে, ততো টেস্টই হবে খাবার ,যখন কি ইউরোপ এর সভ্যতা হলো নিঃশব্দে খাবার খাওয়া।
ইরান খাবার দেয়ার সময় রুটি দেবে টেবিল এর মাঝ খানে। আপনার প্লেটএ  নয় !সবাই কে ওখান থেকেই রুটি ছিঁড়ে  নিতে হবে।

সাউথ কোরিয়া আগে বাচ্ছা আর বয়স্কদের খাবার শুরু করতে দেয় ,তারপর বাকি অতিথি রা খাবেন। জাপান আর চীন ভাত দেয় যে বাটিতে সেটা দু হাত দিয়ে বিনয়ের সঙ্গে ধরে রাখতে হয় ,খাবার আগে। আসুন ব্রিটেন এর কথায় ডিনার কিন্তু যত দেরিতে হবে খাবারের পরিমান ততো কমবে,এটা  জানেন কি ?এমনকি বেশি রাতের ডিনার হলে শুধু চা পান করিয়ে ঘরে পাঠিয়ে দেবে ,বুঝুন ঠেলা ।

কত গুলো সাধারণ  food  name !




আগেই  বলি 'রন্ডেলে'  শুনি কলকাতা তে এসে ,না,না এটা কিন্তু কলকাতার কোনো খাবার নয় ,এটি ইতালিয়ান স্টার্টার।কিছু না আলু ভাজা কে বলে রন্ডেলে। এবার আসছি আসল food menu এর নাম গুলোতে। পিঁপড়ের ডিম্ দিয়ে সূপ ,কেমন লাগবে ভাই !দারুন ,তাই না, লাওস  দেশের এর বিখ্যাত সূপ এর মধ্যে পড়ে ant  এগ সূপ আহা  কি খেতে কি বলবো  !

কম্বোডিয়া তে মাকড়সা ভাজা পাওয়া যায় ,আর এটা হলো কম্বোডিয়ার বিখ্যাত স্নাক্স এর একটি,fried torentulla .চীন  আবার বললো আমিও কম যাই না, আমাদের দেশে পপুলার সূপ হয় পাখির বাসা দিয়ে ,এটা ভয়ানক দামি স্যুপ চীন দেশে। চীনের আর একটা দারুন খাবার হলো,হাঁস ,মুরগি আর কোয়েল আর ডিম্ কে ,কাদা,ছাই ,ধানের তুষ আর নুন দিয়ে ডিমগুলো আস্তরণ দেয় ,তারপর অনেক দিন অমনি ভাবে রেখে খায় ওগুলো।

থাইল্যান্ড এর জনগণ এগিয়ে এলো তাদের ফুড মেনুর সঙ্গে --থাইল্যান্ডের মানুষের প্রিয় স্নাক্স হলো কুড়কুড়ে করে ভাজা ঝিঁঝি পোকা আর পঙ্গপাল ,স্যার টেস্ট করবেন অবশই থাইল্যান্ড গেলে ,এগুলো ওখানকার স্ট্রিট ফুড ও। আচ্ছা "এস্কিমো আইস ক্রিম" কেমন জানেন ?সাধারণ ভাবে এগুলোতে দেয়া হয় ,যেকোনো বেরিস ,মানে স্ট্রবেরি ,রাস্পবেরি,ব্লুবেরি ,সুগার আর মাছ এর টুকরো দিয়ে আইস ক্রিমটা তৈরি হয় !মাছ দিয়ে আইস ক্রিম ,বলি হারি যাই টেস্ট !

জাপান এক ধরনের বিসকুট করে সেটাও  অদ্ভুত আমরা ওরকম খাইনা তাই অদ্ভুত লাগে ,বিস্কুট কোম্পানির নাম হলো "ওম্যাচি কোম্পানি ",ের মৌমাছি দিয়ে বিসকুট বানায়,এগুলো খাস্তা খেতে হয় আর এটা জনপ্রিয় জাপানে।

সংগ্রামী ভিয়েত নাম দেশ বানায় স্নেক whisky ,ওপরের ছবিটা ওই মদের বোতলের ,কি বলছেন দেখেই নেশা ছুটে  গেলো ,খেলে না জানি কি হবে।

https://www.kakolib.com/2020/01/why-fight-for-food-menu.html
why fight for food menu
কি এবার মনে হচ্ছে কিনা ,বাড়ির খাবার অনেক ভালো ,ঠিক তাই ঝোল ভাত কিংবা ডাল  রুটি খান আর খুশিখুশি প্রভু কি গুণ গান।  বাড়ির ফুড মেনু নিয়ে আর ঝামেলা করবেন না ,যা পান খুশি মনে খান। অপরে কি খাচ্ছে  তা নিয়ে আমাদের মাথা ব্যাথার কি দরকার !







No comments

Powered by Blogger.